Blog

এমন একটি বিষয়ে পড়াশোনা প্রয়োজন যেন শিক্ষাজীবন শেষ হওয়ার আগেই চাহিদামতো চাকরি পাওয়া যায়। এ জন্য সময় বুঝে সঠিক বিষয় নিয়ে এগোতে হবে। চমৎকার ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে। প্রফেশনাল কোর্সগুলোতে। কোর্সগুলো হলো : হার্ডওয়্যার ও নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ারিং, ওয়েব অ্যান্ড ই-কমার্স, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং এবং আইটি সেক্টরের বিভিন্ন ধরনের বিশেষায়িত শাখা যেমন : হার্ডওয়্যার মেইনটেন্যান্স, নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্ট, সিসিএনপি, উইন্ডোজ সার্ভার এইট, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ডেটাবেজ ম্যানেজমেন্ট, জুমলাওয়ার্ডপ্রেস, অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি, আউটসোর্সিং প্রভৃতি সেক্টরই স্বপ্নময় সম্ভাবনাসমৃদ্ধ, কিন্তু দরকার বিশেষায়িত দক্ষতা ও জ্ঞানের গভীরতা এবং বাস্তবমুখী শিক্ষার প্রায়োগিক ক্ষমতা। আমাদের দেশে বাস্তবমুখী শিক্ষা গ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক দক্ষ ও মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাবই এক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায় হয়ে দেখা দিয়েছে। এ কোর্সগুলো সম্পূর্ণভাবে ব্যবহারিক ক্লাসভিত্তিক, যা সার্টিফায়েড প্রফেশনাল প্রশিক্ষকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে থাকে। প্রতি বছর চারটি সেশনে (মার্চ, জুন, সেপ্টেম্বর, ডিসেম্বর) এবং তিনটি শিফটে (সকাল-বিকেল-সান্ধ্যকালীন) এ ডিপ্লোমা কোর্সগুলোয় ভর্তি করা হয়। কোর্সগুলোর অন্য একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, কোর্স শেষে বাধ্যতামূলক রিয়েললাইফ প্রজেক্ট ওয়ার্ক ও ১-৩ মাস মেয়াদি ইন্টার্নশিপ, যা একজন শিক্ষার্থীকে হাতে-কলমে কাজ শিখতে সাহায্য করে।
এ ছাড়াও রয়েছে প্রশিক্ষকদের সার্বক্ষণিক ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোর্স সমাপ্তি, পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল মূল্যায়নের নিশ্চয়তা(৬৪/৬, লেক সার্কাস, পান্থপথ (রাসেল স্কয়ার, কলাবাগান, ঢাকা। ফোন :৯১৩৪৬৯৫, ০১৭১৩৪৯৩২৬৭) নিয়মিত থিওরি ক্লাসের সঙ্গে পর্যাপ্ত প্র্যাকটিক্যাল ক্লাস ও কঠোরভাবে মান নিয়ন্ত্রণের কারণে এখান থেকে পাসকৃত ছাত্রছাত্রীদের কর্মজীবনে সফলতার হার শতভাগ। এখানে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কোর্সে দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের ড্যাফোডিল ফাউন্ডেশন বৃত্তি প্রদান করে থাকে। নূ্যনতম এসএসসি পাস যে কোনো বয়সের যে কেউ এ কোর্সগুলোতে ভর্তি হতে পারবে। বর্তমানে ২০১৭ সেশনে ভর্তি চলছে। – See more at: http://bangla.samakal.net/2017/04/04/282390#sthash.ZXxaMOKV.dpuf

Leave a Reply