Blog

সময়ের সাথে সাথে দেশ যতই এগিয়ে যাচ্ছে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ততই আইটি নির্ভর হয়ে পড়ছে। যার ফলে আইটি সেক্টর হয়ে উঠেছে ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্টের জন্য তরুণ প্রজন্মের প্রথম পছন্দ। আইটি সেক্টরের বিভিন্ন ধরনের বিশেষায়িত শাখা যেমন- অ্যানিমেশন ও মাল্টিমিডিয়া, ইন্টেরিয়র ও আর্কিটেক্সচার, হার্ডওয়্যার ও নেটওর্য়াকিং, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং, ডেটাবেজ ম্যানেজমেন্ট, ওয়েব ডিজাইন অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট, আউটসোর্সিং প্রভৃতি সেক্টরই স্বপ্নময় সম্ভাবনা সমৃদ্ধ, কিন্তু দরকার বিশেষায়িত দক্ষতা ও জ্ঞানের গভীরতা এবং বাস্তবমুখী শিক্ষার প্রায়োগিক ক্ষমতা। কিন্তু আমাদের দেশে বাস্তবমুখী শিক্ষা গ্রহণের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক দক্ষ ও মানসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাবই এক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায় হয়ে দেখা দিয়েছে। এক্ষেত্রে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল প্রফেশনাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (www.dipti.com.bd) প্রয়াসকে ব্যতিক্রম বলা যেতে পারে। সাফল্যের সাথে শত শত শিক্ষার্থীকে প্রফেশনাল প্রশিক্ষণ প্রদান, আত্মকর্মসংস্থানের সহায়তা ও দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করার জন্যই দীপ্তি আজ দেশের সেরা প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। দীপ্তি পরিচালিত কোর্সগুলো সম্পূর্ণভাবে ব্যবহারিক ক্লাসভিত্তিক যা সার্টিফাইড প্রফেশনাল প্রশিক্ষকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে থাকে। কোর্সগুলোর অন্য একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে কোর্স শেষে বাধ্যতামূলক রিয়েললাইফ প্রজেক্ট ওয়ার্ক ও ১-৩ মাস মেয়াদী ইন্টার্নশিপ যা একজন শিক্ষার্থীকে হাতে কলমে কাজ শিখতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও রয়েছে প্রশিক্ষকদের সার্বক্ষণিক ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোর্স সমাপ্তি, পরীক্ষাগ্রহণ ও ফলাফল মূল্যায়নের নিশ্চয়তা। নিয়মিত ও পর্যাপ্ত প্র্যাকটিক্যাল ক্লাসে কঠোর ভাবে মাননিয়ন্ত্রণের কারণে এখান থেকে পাসকৃত শিক্ষার্থীদের কোর্স শেষে চাকরির নিশ্চয়তা শতভাগ। সার্বক্ষণিক জেনারেটর, পাঠাগার, অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন আন্তর্জাতিকমানের কম্পিউটার ল্যাব সমৃদ্ধ সুবিশাল ক্যাম্পাস, যা শিক্ষার্থীদের শিক্ষার পরিবেশকে করে নিশ্চিত ও যুগপযোগী। কর্মব্যস্তদের জন্য রয়েছে সান্ধ্যকালীন ক্লাসের ব্যাবস্থা। দীপ্তি পরিচালিত বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কোর্সে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে ড্যাফোডিল ফাউন্ডেশন বৃত্তি প্রদান করে থাকে। ন্যূনতম এসএসসি পাস যেকোনো বয়সের যে কেউ এই কোর্সগুলোতে ভর্তি হতে পারবে। প্রফেশনাল প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দীপ্তি বিগত ১৩ বছরে কয়েক হাজার বেকার প্রশিক্ষণার্থীকে কর্মপোযোগী করে গড়ে তুলেছে যাদের অনেকেই এখন স্ব-স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে প্রফেশনাল প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে বেকারদের দক্ষ জনবল তথা আত্মকর্মসংস্থানের উপযোগী হিসেবে গড়ে তুলতে এক বছর মেয়াদী নিম্নলিখিত প্রফেশনাল কোর্সসমূহে মার্চের সেশনে ৫৩তম ব্যাচে সীমিত সংখ্যক আসনে ভর্তি চলছে। এ ছাড়াও রয়েছে ৩ থেকে ৬ মাস মেয়াদী থ্রিডি ম্যাক্স, মায়া, মাল্টিমিডিয়া, ম্যাক্রোমিডিয়া ফ্ল্যাশ, ভিডিও এডিটিং, অটোক্যাড, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ইন্টেরিয়র ডিজাইন, অ্যাপারেল মার্চেন্ডাইজিং, কম্পিউটার প্রোগ্রামিং, ডাটাবেজ প্রোগ্রামিং, কম্পিউটার অফিস অ্যাপ্লিকেশন, প্রফেশনাল আউটসোর্সিং অন গ্রাফিক্স/ অ্যানিমেশন/ গেম ডিজাইন, হার্ডওয়্যার মেইনটেন্যান্স, নেটওয়ার্ক সার্টিফিকেশন, সিসিএনপি, উইন্ডোজ সার্ভার, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং, ডেটাবেজ ম্যানেজমেন্ট, জুমলা ওয়ার্ডপ্রেস, অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি, সিসিএনএ, আউটসোর্সিংয়ের উপর সার্টিফিকেট কোর্স ।

Leave a Reply